সেন্টমার্টিন ট্রলারডুবি: মৃতদেহ ২০, উদ্ধার ৭৩; নিখোঁজ আরও অর্ধশত

অবৈধভাবে মালয়েশিয়া যাওয়ার পথে সেন্টমার্টিন দ্বীপের পশ্চিমে বঙ্গোপসাগরে একটি ট্রলার ডুবে গেছে। ট্রলারে অবস্থান করা সকল যাত্রীই রোহিঙ্গা সম্প্রদায় বলে নিশ্চিত করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. আব্দুল মোমেন। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ২০ রোহিঙ্গার মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। নিহতরা সবাই নারী ও শিশু বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ কোস্টগার্ডের সদস্যরা। এ ছাড়া ৭৩ রোহিঙ্গাকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় আরও অর্ধশত রোহিঙ্গা নিখোঁজ রয়েছেন বলেও জানা যায়। তাদের উদ্ধারে কোস্টগার্ড ছাড়াও নৌবাহিনী, বিজিবি, পুলিশসহ বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অংশ নিয়েছে। মঙ্গলবার (১১ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৭টার দিকে সেন্টমার্টিন দ্বীপের সাত থেকে আট কিলোমিটার দূরে এ ঘটনা ঘটে।

সেন্টমার্টিন কোস্টগার্ডের কমান্ডার লেফটেন্যান্ট নাঈমুল হক জানান, অবৈধভাবে সাগরপথে মালয়েশিয়া যাওয়ার সময় সকাল ৭টার দিকে একটি ট্রলার সেন্টমার্টিন দ্বীপ থেকে সাত থেকে আট কিলোমিটার দূরে ডুবে যায়। খবর পেয়ে বাংলাদেশ কোস্টগার্ড সদস্যরা দ্রুত উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করেন। সকাল থেকে নারী ও শিশুর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। উদ্ধার অভিযান এখনও চলছে।