সরকারি চাকরিতে বয়সসীমা ৩৫ বছরের দাবিতে ফের আন্দোলনের ডাক

সরকারি চাকরিতে যোগদানের বয়সসীমা ৩৫ বছরের দাবিতে ফের শাহবাগে আন্দোলনে নামতে যাচ্ছে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্রকল্যাণ পরিষদ। ৭ নভেম্বরের মধ্যে সরকার দাবি মেনে না নিলে ১৩ নভেম্বর আন্দোলন নামবে। সোমবার (২৬ অক্টোবর) সংগঠনটির পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তি আরও বলা হয়, আগামী ১৩ নভেম্বর শাহবাগে শেকলবন্দি সমাবেশের পর ১৪ নভেম্বর জাতীয় প্রেসক্লাবে অবস্থান কর্মসূচি পালন করা হবে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, এবার ৪ দফা দাবিতে ‘শেকলবন্দী’ সমাবেশ করা হবে। এটি যৌক্তিক আন্দোলন। সরকার আমাদের এই আবেদন আমলে নেবে। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার আগে বলেছিল, ক্ষমতায় আসলে চাকরিতে আবেদনের বয়সসীমা বাড়ানো হবে। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরও বলেছিলেন প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে পজিটিভ আলোচনা হয়েছে-অথচ এখনও এ-সংক্রান্ত কোন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি।

বিশ্বের উন্নত ও উন্নয়নশীল ১৯৭টি দেশে চাকরিতে আবেদনের বয়সসীমা ৩৫ এবং তার ঊর্ধ্বে। এমনকি আমাদের পাশের দেশ ভারতেও চাকরিতে আবেদনের বয়সসীমা ৪০ বছর। বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশের কাতারে যাচ্ছে বলে দাবি করা হলেও আবেদনের বয়সসীমা ৩৫ করা হবে না কেন?

আরও বলা হয়, বারবার সংসদে চাকরির বয়সমীমা ৩৫ দাবিটি উত্থাপিত হয়েছে। একাধিকবার মন্ত্রিপরিষদ সুপারিশ করেছেন। ছাত্রলীগ এবং মুক্তিযোদ্ধার সন্তানেরাও এই দাবি নিয়ে একাত্মতা পোষণ করেছিল। সুশীল সমাজ এবং রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গও ৩৫ দাবিটি নিয়ে পজিটিভ রেসপন্স করলেও কেন সরকার তালবাহানা করছে।