ভিপি নুরের সংগঠনের ৩ নেতাকে তুলে নেয়ার অভিযোগ

ছাত্র অধিকার পরিষদের তিন নেতাকে ডিবি পুলিশ তুলে নিয়ে গেছে বলে অভিযোগ করেছেন সংগঠনটির নেতাকর্মীরা। তাদের মধ্যে দু’ জন এক ঢাবি ছাত্রীর দায়ের করা ধর্ষণ মামলার আসামি। নুরের সংগঠনের যুগ্ম আহ্বায়ক জাহেদুল ইসলাম জানান, তাঁরা মিন্টো রোডে ডিবি কার্যালয়ে খোঁজ নিতে গেলে ডিবি তাঁদের নেয়নি বলে জানানো হয়।

জাহেদুল ইসলাম জানান, মামলার আসামি নাজমুল হুদা গতকাল মগবাজারে একটি কম্পানিতে চাকরির জন্য ইন্টারভিউ দিতে গিয়েছিলেন। তখন সেখান থেকে তাঁকে ডিবি পরিচয়ে আটক করে নিয়ে যাওয়া হয়। সন্ধ্যায় চানখাঁর পুল এলাকার বাসা থেকে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের কেন্দ্রীয় যুগ্ম আহ্বায়ক সাইফুল ইসলামকে ডিবি পরিচয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। আর প্রেস ক্লাব এলাকা থেকে নিয়ে যাওয়া হয় মো. সোহরাব হোসেন নামের সংগঠনটির আরেক নেতাকে। তিনি একটি প্রতিবাদসভায় যোগ দিতে গিয়েছিলেন।

সম্প্রতি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সহসভাপতি (ভিপি) নুরুল হক নুরের বিরুদ্ধে ধর্ষণে সহায়তার মামলা করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়েরই এক ছাত্রী। রাজধানীর লালবাগ থানায় করা মামলায় প্রধান আসামি ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের স্নাতকোত্তর উত্তীর্ণ হাসান আল মামুন। তিনি কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনকারীদের প্ল্যাটফর্ম বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের আহ্বায়ক। এতে নুর তিন নম্বর আসামি। অন্য আসামিরা হলেন নাজমুল হাসান, মো. সাইফুল ইসলাম, নাজমুল হুদা ও আবদুল্লাহ হিল বাকি।