আরও টিকা কেনা হবে, টাকা প্রস্তুত রাখতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, করোনা প্রতিরোধে আরও টিকা কেনার হবে। সে জন্য অর্থের সংস্থান নিশ্চিত করার নির্দেশনা দিয়েছেন। পাশাপাশি কৃষি উৎপাদন বিঘ্নিত ও মানুষের খাদ্য সমস্যা না হয় সে দিকেও খেয়াল রাখতে বলেছেন। মঙ্গলবার (২ মার্চ) জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) সভায় তিনি এ নির্দেশনা দেন। পরিকল্পনা কমিশনের সচিব মোহাম্মদ জয়নুল বারী সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনার কথা উল্লেখ করে সচিব বলেন, প্রধানমন্ত্রী সময় মতো করোনার টিকা দেওয়ার কথা বলেছেন। বলেছেন প্রয়োজনে আরও টিকা কেনা হবে। সেজন্য অর্থ সংস্থান রাখতে হবে। পাশাপাশি কৃষি উৎপাদন বিঘ্নিত এবং মানুষের খাদ্য সমস্যা যেন না হয় সেই নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সংশ্লিষ্ট মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী, সচিবরা রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে উপস্থিত থেকে ও সচিবালয় থেকে এবং প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এনইসি সভায় অংশ নেন।

সচিব মোহাম্মদ জয়নুল বারী বলেন, প্রধানমন্ত্রী আজ নির্দেশনা দিয়েছেন যে, নদীর ভাঙন রোধে যেন শুষ্ক মৌসুমে কাজ করা হয়।

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন করোনাকালে সারা বিশ্বে যেখানে অর্থনীতি মারাত্মক হুমকির মুখে পড়েছে, সেখানে আমরা যেভাবে অর্থনীতিকে চালু রেখেছি, সেটা বজায় রাখতে হবে। আমাদের এখন গুরুত্ব দিতে হবে খাদ্য উৎপাদন, মানুষকে খাদ্য সরবরাহ, মানুষের নিত্যপ্রয়োজনীয় যে বিষয়গুলো আছে, অর্থ ব্যয়ের ক্ষেত্রে সেখানে গুরুত্ব দিতে হবে। যাতে মানুষের খাদ্য সমস্যা না হয়, কৃষি উৎপাদন বিঘ্নিত না হয়।

সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, যে সম্পদ আছে, তা দিয়েই দেশকে গড়ে তুলতে হবে। বলেন, দেশের মানুষকে কীভাবে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া যায়, উন্নত জীবন দেয়া যায়, সেটিই প্রধান লক্ষ্য। উন্নয়নশীল দেশ হওয়ার অর্জনকে ধরে রাখতে চিন্তা-ভাবনা করে পদক্ষেপ নেয়ার নির্দেশ দেন সরকার প্রধান।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, উন্নয়নশীল মর্যাদা পাওয়ায় দেশের মানুষ এখন বিশ্বের বুকে মাথা উঁচু করে চলবে।

যথাসময়ে এবং যথাসম্ভব আইন-কানুন মেনে সব প্রকল্প সমাপ্ত করার জন্য নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী বলেও জানান পরিকল্পনা বিভাগের সচিব। সভায় ২০২০-২১ অর্থ বছরের জন্য ১ লাখ ৯৭ হাজার ৬৪৩ কোটি টাকার সংশোধিত এডিপি অনুমোদন দেয়া হয়।